নিবন্ধন পরীক্ষার প্রশ্ন পার্ট ২

-পরীক্ষার-প্রশ্নjpg-e1602529310572.jpg

নিবন্ধন পরীক্ষার প্রশ্ন

নিবন্ধন পরীক্ষার প্রশ্ন এগুলো । আশা করি পড়লে অনেক কমন পড়বে ।

  1. প্রশ্ন : পদ্মা সেতুর প্রকল্পের নাম কী?উত্তর : পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্প।
  2. প্রশ্ন : পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য কত?উত্তর : ৬.১৫ কিলোমিটার।
  3. প্রশ্ন : পদ্মা সেতুর প্রস্থ কত?উত্তর : ৭২ ফুটের চার লেনের সড়ক।
  4. প্রশ্ন : পদ্মা সেতুতে রেললাইন স্থাপন হবে কোথায়?উত্তর : নিচ তলায়।
  5. প্রশ্ন : পদ্মা সেতুর ভায়াডাক্ট কত কিলোমিটার?উত্তর : ৩.১৮ কিলোমিটর।
  6. প্রশ্ন : পদ্মা সেতুর সংযোগ সড়ক কত কিলোমিটার?উত্তর : দুই প্রান্তে ১৪ কিলোমিটার।
  7. প্রশ্ন : পদ্মা সেতু প্রকল্পে নদীশাসন হয়েছে কত কিলোমিটার?উত্তর : দুই পাড়ে ১২ কিলোমিটর।
  8. প্রশ্ন : পদ্মা সেতু প্রকল্পে মোট ব্যয় কত?উত্তর : মূল সেতুতে ২৮ হাজার ৭৯৩ কোটি ৩৯ লাখ টাকা।
  9. প্রশ্ন : পদ্মা সেতু প্রকল্পে নদীশাসন ব্যয় কত?উত্তর : ৮ হাজার ৭০৭ কোটি ৮১ লাখ টাকা।
  10. প্রশ্ন : পদ্মা সেতু প্রকল্পে জনবল কতজন?উত্তর : প্রায় ৪ হাজার।
  11. প্রশ্ন : পদ্মা সেতুর ভায়াডাক্ট পিলার কয়টি?উত্তর : ৮১টি।
  12. প্রশ্ন : পানির স্তর থেকে পদ্মা সেতুর উচ্চতা কত?উত্তর : ৬০ ফুট।
  13. প্রশ্ন : পদ্মা সেতুর পাইলিং গভীরতা কত?উত্তর : ৩৮৩ ফুট।
  14. প্রশ্ন : প্রতি পিলারের জন্য পাইলিং কয়টি?উত্তর : ৬টি।
  15. প্রশ্ন : পদ্মা সেতুর মোট পাইলিং সংখ্যা কত?———উত্তর : ২৬৪টি।
  16. প্রশ্ন : পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ শেষ হবে কবে?———-উত্তর : ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে।
  17. প্রশ্ন : পদ্মা সেতুতে কী কী থাকবে?উত্তর : গ্যাস, বিদ্যুৎ ও অপটিক্যাল ফাইবার
  18. লাইন পরিবহন সুবিধা।
  19. প্রশ্ন : পদ্মা সেতুর ধরন কেমন?উত্তর : দ্বিতলবিশিষ্ট এই সেতু কংক্রিট আর স্টিল দিয়ে নির্মিত হবে।
  20. প্রশ্ন : পদ্মা সেতুর পিলার সংখ্যা কত?উত্তর : ৪২টি।
  21. প্রশ্ন : পদ্মা সেতু প্রকল্পে চুক্তিবদ্ধকোম্পানির নাম কী? উত্তর : চায়না রেলওয়ে গ্রুপ লিমিটেড।

বিভিন্ন চাকরির পরীক্ষায় আসা কিছু ব্যতিক্রমধর্মী এককথায় প্রকাশঃ নিবন্ধন পরীক্ষার প্রশ্ন

আকাশ ও পৃথিবী→ ক্রন্দসী

উরন্ত পাখির ঝাঁক→ বলাকা

জন্ম নেই যার→ অজ

অর্থহীন উক্তি→ প্রলাপ

কথায় পটু→ বাগীশ

কাচের তৈরি ঘর→ শিশমহল

কুবেরের ধন রক্ষক→ যক্ষ

গমন করতে পারে যে→ জঙ্গম

তিন ভাগের এক→ তেহাই

ধুলার মতো রং যার→ পাংশুল

নাটকের পাত্র-পাত্রী→ কুশীলব

পাখির ডাক→ কাকলি

বস্ত্র কিংবা পত্রের শব্দ→ মর্মর

বিড়ালের ডাক→ জিবন

বর্ষের শেষে আয় ব্যয়েরপ্রতিবেদন→সালতামামি

বৃক্ষাদির নতুন কচি শাখা বাপাতা→ কিশলয়

বৃষ্টির জল→ শীকর

ভ্রমণ করার ইচ্ছা→ বিভ্রমিষা

ভেতরে প্রবেশ→ সন্নিবেশ

ফিটফাট গোছের তরুণ যুবক→ ফটিকচাঁদ

ফুলের মধু→ মকরন্দ

মেঘের ডাক→ মন্দ্র

যা স্হানান্তর করা যায়না→ স্থাবর

যিনি অনেক দেখেছেন→ভূয়োদর্শী

যিনি বাক্যে অতি দক্ষ→ বাচস্পতি

যুদ্ধ হতে পালায়না যে সৈন্য→সংশপ্তক

যে নারী অন্যের নিন্দা করেনা→অনসূয়া

যে পাখি বৃষ্টির পানি ছাড়া অন্জল পান করেনা→ চাতক

রাতের শিশির→ শবনম

হাতির শাবক→ করভ

হাতির বাসস্থান→ পিলখানা

সিংহের ধ্বনি→ নাদ

হস্তী, অশ্ব, রথ ও পদাতিকের ব্যবহার→চতুরঙ্গ।

বিভিন্ন চাকরির পরীক্ষায় আসা কিছু ব্যতিক্রম ধর্মী শব্দার্থঃ

১/ শুখো – অনাবৃষ্টি

২/ হাজা – অতিবৃষ্টি

৩/ লেফাফা – মোড়ক, পোশাক

৪/ রম্ভা – কলা

৫/ পনস – কাঁঠাল

৬/ কুম্ভিলক – নকলবাজ

৭/ শীকর – বৃষ্টির জল

৮/ নির্নিমেষ – অপলক

৯/ ধুপ – রোদ

১০/ বুধ – জ্ঞানী

১১/ তুহিন – ঠাণ্ডা

১২/ তাঞ্জাম- পালকি

১৩/ তানাজা- ঝগড়া,বিবাদ

১৪/তাবুত-শবাধার,কফিন

১৫/ তাবেঈন- অনুসারীগণ

১৬/ তামদারি- আপ্যায়ন;অভ্যর্থনা

১৭/ তামস-ঘন অন্ধকারাচ্ছন্ন

১৮/ তামান্না- আশা,অভিলাষ

১৯/ দীপিকা- প্রদীপ,জোছনা

২০/ নুলোম-এর শাব্দিক অর্থ হলো- অনুক্রম, যথাক্রম

২২/কুষ্মাণ্ড – কুমড়া

২৩/সালতি – ছোট ডিঙ্গি নৌকা

২৪/প্রদোষ – সন্ধ্যা

২৫/মাতৃষ্বসা – খালা

২৬/মণ্ডূক – কুনোব্যাঙ

২৭/আহব – যুদ্ধ

২৮/সওগাত – উপহার

২৯/অসিতবরণ – কালো রং

৩০/ষষ্টি – লাঠি

৩১/গন্ধবহ – বায়ু

৩২/হোমাগ্নি – আগুন

৩৩/ওদন – অন্ন, খাবার

৩৪/মুঢ়োতা – কুসংস্কার

৩৫/আভাষ – পূর্ব ধারণা

৩৬/আকিঞ্চন – ইচ্ছা

৩৭/অরণি – আগুন/ অগ্নি উৎপাদনের কাঠ

৩৮/কুবের – ধনের দেবতা

৩৯/পর্ণশালা – পাতা দিয়ে ছাওয়া ঘর।

নিবন্ধন পরীক্ষার প্রশ্ন যা বিভিন্ন পরিক্ষায় পূর্বে ধরেছিল

১০টি গুরুত্বপূর্ণ Appropriate preposition

___________________________

  1. ✪ Based on – ভিত্তি থাকা।

  2. ✪ Annoy at – বিরক্ত

  3. ✪ Excel in – তুলনামূলকভাবে সুন্দর হওয়া

  4. ✪ Kind of – প্রকার।

  5. ✪ Dedicate to – উৎস্বর্গ করা।

  6. ✪ Grateful to – কৃতজ্ঞ।

  7. ✪ Congratulate on- অভিনন্দন জানানো

  8. ✪ Insist on – জিদ করা।

  9. ✪ Object to – আপত্তি করা।

  10. ✪ Subject to – শর্তাধীন।

 

বিগত প্রাইমারী পরীক্ষায় যেগুলো এসেছিল :নিবন্ধন পরীক্ষার প্রশ্ন

1) Achievement (2018,2013,2012,2010)

2) Accelerate (2018,12, 14)

3) Assessment(2010,14)

4) Adulteration (2018,09,13)

5)Acquiescence (2013)

6) Acclamation (2013)

7) Accessible (2005,10,11,13)

8)Agreeable (2012)

9) Agriculture (2012)

10)Ascertain (2012)

11) Accession (2011)

12) Acquaintance (2010)

13) Assignment (2010)

14) Alleviation (2010)

15) Absorb (2010)

16) Accommodation (2007)

17) Bouquet (2006,09,10,15)

18) Bureaucrat (2012,13,15)

19) Brochure (2012)

20) Believable. (2010)

21) Barrier (2010)

22) Belligerent (2009)

23) Committee (2010,15)

24) Catastrophe (09,13,14)

25) Conqueror (09,1314)

26) Collaboration (06,10,11,12 13)

27) Connoisseur (09,13)

28). Commission (08,11,12,13)

29) Contiguous (08,12)

30) Commemorate (2012)

31) Commentary (06, 07,11)

32). Conscientious (2010)

33) Ceiling (2010)

34). Constellation (08,10)

35). Chrysanthemum (2009)

36) Conspicuous (2008)

37) Conquer (2002)

38) Counsil (1990)

39) Diarrhoea (2001,2018)

40) Dysentery (06,08,10,11,14)

41) Exaggerate (2014)

42) Embarrassment (2012,13)

43) Exhilaration ( 2008,10,13)

44) Encyclopedia/Encyclopaedia (2009,11,13)

45) Efflorescence (2008,13)

46) Explanation (2012)

47) Elementary (2010)

48) Exemplary (2009,10)

49) Education (1997)

50) Foreigner (2009,10)

51) Grievance (2008,09,10,12,13)

52) Forfeit (2008,09)

53) Guillotine (2013)

54) Grammatic (2011)

55) Humorous (2018,2013,2012)

56)Heterogeneous (06,09,13)

57) Incandescent.( 2009,13)

58) Indispensable (2011)

59) Jewellery (2010,12,13)

60) Kaleidoscope (2009,13)

61) Lieutenant (06)

62)Misspell (2013)

63) Missionary (09,13)

64). Moustache/mustache ( 2009,13)

65)Psychology (09,11,12)

66) Magnanimous (2010)

67) Occasion (08,09,10,11)

68) Possession (10,12)

69) passenger (2010)

70) professional (2010)

71) personnel ( 2007)

72) Sovereignty (2016 muktijuda kuta)

73) Supersede -(2015)

74) Secretariat (2014)

75) Surveillance (09,13)

76) Sabotage (2013)

77) Satellite (09,10)***next exam

78)Sedentary (2012)

79) superstitious (09)

79) Tsunami (2015)

80)Tuition (1995).

synoym

Appall (মর্মাহত করা/আতঙ্কিত করা) — dismay

(আতংকিত করা) [৪০তম]

Franchise (ভোটাধিকার) —- privilege (নাগরিক অধিকার) [৩৮তম]

Appended (যোগ করা) —- joined (যোগ করা) [৩৭তম বিসিএস]

Alluring (লোভনীয়)—- tempting (প্রলুব্ধকর) [৩৭তম]

proviso (শর্ত) —-Stipulation (শর্ত) [৩৭তম]

venerate (সম্মান করা) —- Respect (সম্মান করা) [৩৬তম]

Initiative (উদ্যোগ)—- enterprise (উদ্যোগ) [৩৫তম]

Exponentialy (দ্রুতগতিতে) —– Rapidly (দ্রুতগতিতে) [৩৫তম]

periphery (শেষ সীমানা, প্রান্ত) —- Marginal areas (প্রান্তিক এলাকাসমূহ) [৩৫তম]

Authoritarian (স্বৈরশাসক) —- Autocratic (স্বৈরাচারী)[৩১তম]

permissive (স্বাধীনচেতা) —- liberal (উদার) [৩২তম]

Succumb (দাখিল করা) —- submit (দাখিল করা) [৩৩তম]

Extempore (পূর্বপ্রস্তুতিহীন) —– Impromptu (পূর্বপ্রস্তুতিহীন)[৩২তম]

Menacing (ভীতিকর) —- Alarming (ভীতিকর) [৩২তম]

Courteous (ভদ্র) —- gracious (ভদ্র) [৩২তম]

Sporadic (বিক্ষিপ্ত) —- Scattered (বিক্ষিপ্ত) [৩১তম]

Omnipotent (সর্বশক্তিমান) —- Supreme (সর্বশক্তিমান) [৩১তম]

Room —- Space [৩১তম]

Condemn (নিন্দা করা) —- Denounce (নিন্দা করা) [৩১তম]

Improvement (অগ্রগতি ) —- Betterment (উন্নয়ন)/advancement (অগ্রগতি) [৩১তম]

pragmatic (প্রায়োগিক) —— practical (প্রায়োগিক) [২৯তম]

precedence (অগ্রাধিকার) —– priority (অগ্রাধিকার) [২৯তম]

Disinterested (নিরপেক্ষ ) —- Neutral (নিরপেক্ষ)[২৯তম]

Bounty (মহত্ব) —- generosity (মহত্ব) [২৭তম]

Obese (বেশ মোটা) —- very fat (খুব মোটা) [২৭তম]

Magnanimous (মহানুভব) —- generous (মহানুভব)[২৬তম]

Obdurate (অবাধ্য) —- Stubborn (অবাধ্য) [২৪তম]

Gullibe (বিশ্বাস প্রবণ) —- willing to believe anyone (অনায়াসে কোন কিছুতে বিশ্বাস করা) [বাতিলকৃত ২৪তম]

Viable (অর্থ করার যোগ্য) —- that can be done [২৪তম বাতিলকৃত]

Handy (উপকারী) —- Useful (উপকারী) [২৪তম বাতিলকৃত]

Resentment (রাগ) —– indignation (ক্রোধ)[২৩তম]

Cohesive (দৃঢ়ভাব লেগে থাকে এমন) —- Stick together (লেগে থাকা) [২০তম]

Infringe (ভঙ্গ করা) —- Transgress (ভঙ্গ করা)[১৮তম]

Brochure (ব্রোশার, ছোট পুস্তিকা) —— pamphlet (ছোট পুস্তিকা)[১৮তম]

Equivocal (অস্পষ্ট) —- Mistaken (ভ্রান্ত) [১৮তম]

Illusive (অলীক/অবাস্তব) —– Not certain (অনিশ্চিত) [১৮তম]

Efface (মুছে ফেলা) —- Rub out (মুছে ফেলা) [১৭তম]

Intellectual (বুদ্ধিজীবী) —– intelligent (মেধাবী) [১৬তম]

Intrepid (সাহসী) —- fearless (নির্ভীক) [১৫তম]

Bootleg (চোরাচালান করা) —- Smuggle (চোরাচালান করা) [১৫তম]

Incredible (অবিশ্বাস্য) —- Unbelievable (অবিশ্বাস্য)[১৫তম]

scuttle (পরিত্যাগ করা) — Abandon (পরিত্যাগ করা) [১৩ত্যাগ]

belated (ধীরগতিসম্পন্ন) —- tardy (ধীরগতিতে চলে এমন )[১৩তম]

Sequences (অনুক্রম) —- to follow (অনুসরণ করা) [১৩তম]

Competent (সক্ষম) —- capable (সক্ষম) [১০তম]

Jovial (আমুদে) —- Jolly (আমুদে)/Gay (হাসিখুসি) [১০তম]

Incite (খেপানো) —– Instigate (খেপানো) [১১তম]

Delude (প্রতারিত করা) —- Deceive (প্রতারণা করা) [১২তম]

euphemism (সুভাষণ) – inoffensive expression (কোমল অভিব্যক্তি) [১৩তম, ৩৮তম]

# Antonyms

Dearth (স্বল্পতা, অভাব)—–Abundance (প্রাচুর্য)

………………

Frugal (মিতব্যয়ী) —- Extravagant (অপব্যয়ী, উড়নচণ্ডী) [৩৮তম]

Honorary (অবৈতনিক) —- Salaried (বেতনভুক্ত) [১১তম]

Gentle (ভদ্র) —- Rude (অভদ্র) [১১তম]

Supercilious (অহংকারী) —– affable (বিনয়ী, ভদ্র, অমায়িক) [১৪তম]

Indifference (ইনডিফ্রেন্স, অনীহা) —- ardour (উৎসাহ)

Sluggish(ধীরুজ) —- Animated (প্রাণবন্ত) [১৭তম]

Inimical (শত্রুভাবাপন্ন) —- Friendly (বন্ধুভাবাপন্ন)[১৭তম]

Recacitrant (অবাধ্য) —- Compliant (বাধ্য) [২৪তম]

Liability (দায়) —- assets (সম্পদ) [৩১তম]

Hate (ঘৃণা করা) —- Admire (প্রশংসা করা) [৩১তম]

Repeal (বাতিল করা) —- Enact (আইনে পরিণত করা) [৩১তম]

Equity (ন্যায়পরায়ণতা) —- Bias (পক্ষপাতিত্ব) [৩১তম]

Oblige (বাধ্য করা) —- Bother (বিরক্ত করা) [৩২তম]

Cynical (নৈরাশ্যবাদী) —- Gullible (অতিবিশ্বাস প্রবণ) [৩২তম]

Initiative (উদ্যোগ) —- apathy (অনীহা)/

indolence (নিস্ক্রিয়তা)[৩৬তম]

transitory (ক্ষণস্থায়ী) —- permanent (স্থায়ী) [৩৬তম]

Hibernate (নিষ্ক্রিয় অবস্থায় থাকা) —- livenliness (কর্মতৎপরতা, প্রাণবন্ততা)

..

..

#এক_নজরে_বঙ্গবন্ধু_স্যাটেলাইটের_সব_তথ্য নিবন্ধন পরীক্ষার প্রশ্ন

১) বাংলাদেশে নিজস্ব স্যাটেলাইটের – ৫৭ তম দেশ

২) দেশের প্রথম স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু ১ মহাকাশে

পাঠানো হয়েছে – ১২ মে ২০১৮, শুক্রবার দিবাগত রাতে

৩) দেশে এখন স্যাটেলাইট টেলিভিশন সম্প্রচারে আছে –

৩০ টি

৪) এই চ্যানেলগুলো বিদেশের স্যাটেলাইট ব্যবহারের

কারনে প্রতিবছর পরিশোধ করতে হয় – ২০ লাখ ডলার বা

প্রায় ১৭ কোটি টাকা

৫) বঙ্গবন্ধু ১ স্যাটেলাইটে ট্রান্সপন্ডার আছে – ৪০ টি

৬) এখান থেকে ভাড়া দেয়া হবে – ২০ টি

৭) বর্তমানে বাংলাদেশের বেসরকারি টেলিভিশন

চ্যানেল তাদের সম্প্রচারে ব্যবহার করে হংকংয়ের –

অ্যাপস্টার ৭ নামের স্যাটেলাইট

৮) বিটিভি ব্যবহার করে – এশিয়াস্যাট ৭ নামের

স্যাটেলাইট

৯) বঙ্গবন্ধু ১ স্যাটেলাইট মহাকাশে অবস্থান করবে –

১১৯.১ ডিগ্রি পূর্ব দ্রাঘিমাংশে

১০) বাংলাদেশের এই স্যাটেলাইটের আওতায় আসবে

সার্কভুক্ত দেশগুলোসহ – ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন,

মিয়ানমার, তাজাখস্তান, কিরগিজস্তান, উজবেকিস্তান,

তুর্কেমেনিস্তান ও কাজাখস্তান

১১) বাংলাদেশ প্রথম স্যাটেলাইট নিয়ে কাজ শুরু করে –

২০০৭ সালে

১২) বাংলাদেশে মহাকাশে ১০২ ডিগ্রি পূর্ব

দ্রাঘিমাংশে কক্ষপথ বরাদ্দ চেয়ে আবেদন করেছিল

জাতিসংঘের – আন্তর্জাতিক টেলিযোগাযোগ

ইউনিয়নে, ২০০৭ সালে

১৩) বাংলাদেশের এই আবেদনের উপর আপত্তি করেছিল

– ২০ টি দেশ

১৪) বর্তমান কক্ষপথ “ ১১৯.১ ডিগ্রি পূর্ব দ্রাঘিমাংশটি “

বাংলাদেশ সরকার কিনে নেয় – ২১৯ কোটি টাকায়, ২০১৩

সালে, রাশিয়ার ইন্টারস্পুটনিক থেকে

১৫) বঙ্গবন্ধু ১ স্যাটেলাইট তৈরি প্রাথমিক কাজ শুরু হয় –

২০১২ সালে

১৬) স্যাটেলাইট তৈরির মূল কাজ শুরু হয় – ২০১৫ সালে

১৭) এটি তৈরি করে ফ্রান্সের – থ্যালেস অ্যালেনিয়া

স্পেস কোম্পানি

১৮) এটি নিয়ন্ত্রন করা হবে বাংলাদেশের গাজীপুরের –

জয়দেবপুর ও রাঙ্গামাটির বেতবুনিয়া গ্রাউন্ড স্টেশন

থেকে

১৯) এটি নিয়ন্ত্রনের জন্য গাজীপুরে যে ২ অ্যানটেনা

বসানো হয়েছে তাদের ওজন – ১০ টন

২০) এই স্যাটেলাইট প্রথম ৩ বছর পর্যবেক্ষণ করবে –

বাংলাদেশের সাথে, থ্যালেস অ্যালেনিয়া স্পেস

২১) বঙ্গবন্ধু ১ স্যাটেলাইটে মোট ৪০ টি ট্রান্সপন্ডার

রয়েছে যার – ২৬ টি কেইউ ব্যান্ড ও ১৪ টি সি ব্যান্ডের

২২) প্রতিটির ট্রান্সপন্ডার থেকে তরঙ্গ বরাদ্দ পাওয়া

যাবে – ৪০ মেগাহার্টজ হারে

২৩) ৪০ টি ট্রান্সপন্ডারের মোট ফ্রিকোয়েন্সি ক্ষমতা

হলো – ১ হাজার ৬০০ মেগাহার্টজ

২৪) এটি তৈরিতে মোট খরচ হয়েছে – ২ হাজার ৯৬৭ কোটি

টাকা

২৫) এটি যে রকেটে পাঠানো হয় – ফ্যালকন ৯, ব্লক ৫

২৬) যে স্থান থেকে পাঠানো হয় – এলসি ৩৯এ, কেনেডি

স্পেস সেন্টার, যুক্তরাষ্ট্র

২৭) এটির নিমার্তা প্রতিষ্ঠান – ফ্রান্সের থ্যালরস

অ্যালেনিয়া স্পেস

২৮) যে প্রতিষ্ঠান এটি মহাকাশে পাঠায় – মার্কিন

মহাকাশ সংস্থা স্পেসএক্স

২৯) নিয়ন্ত্রন করবে – থ্যালেস ও বিটিআরসি

৩০) এটির ওজন – ৩ হাজার ৫০০ কেজি

৩১) মেয়াদ – ১৫ বছর।

পূর্বের পোস্ট  পেতে এখানে ক্লিক করুন

#বাংলাদেশের_প্রথম: নিবন্ধন পরীক্ষার প্রশ্ন

১.প্রথম প্রধানমন্ত্রী- তাজউদ্দিন আহমেদ

২.প্রথম রাষ্ট্রপতি- বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান

৩.প্রথম অর্থমন্ত্রী- ক্যাপ্টেন মনসুর আলী

৪.প্রথম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি- সৈয়দ নজরুল ইসলাম

৫.প্রথম প্রধান বিচারপতি- আবু মোহাম্মদ সায়েম

৬.প্রথম পুলিশের আই জি- এম.এ.খালেক

৭.প্রথম গভর্ণর- এম এন.হামিদুল্লাহ

৮.প্রথম স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী- এইচ এম.কামরুজ্জামান

৯.প্রথম সেনাবাহিনী- আতাউল গণি ওসমানী

১০.প্রথম জাতীয় ফুটবল দলের অধিনায়ক- জাকারিয়া পিন্টু

১১.প্রথম জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক- শামীম কবির

১২.প্রথম টেস্ট ক্রিকেট দলের অধিনায়ক- নাইমুর রহমান দুর্জয়

১৩.প্রথম টি-টোয়ান্টি ক্রিকেট অধিনায়ক- শাহারিয়ার নাফিস

১৪.প্রথম মহিলা প্রধানমন্ত্রী- বেগম খালেদা জিয়া

১৫.প্রথম মহিলা বিরোধী দলীয় নেত্রী- শেখ হাসিনা

১৬.প্রথম মহিলা বিচারপতি- নাজমুন আরা সুলতানা

১৭.প্রথম মহিলা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী- সাহারা খাতুন

১৮.প্রথম মহিলা পররাষ্ট্রমন্ত্রী- দীপু মণি

১৯.প্রথম মহিলা স্পীকার- ড.শিরিন শারমিন চৌধুরী

২০.প্রথম মহিলা পাইলট- কানিজ ফাতেমা রোকসানা

২১.প্রথম ভাসমান হাসপাতাল- জীবনতরী

২২.প্রথম নোবেল বিজয়ী ব্যক্তি- ড.মুহাম্মদ ইউনুস।

..

..

জ্যামিতিক_সংজ্ঞা: নিবন্ধন পরীক্ষার প্রশ্ন

সূক্ষ্মকোণ (Acute angle) : এক সমকোণ (90°) অপেক্ষা ছোট কোণকে সূক্ষকোণ বলে।

সমকোণ (Right angle) : একটি সরল রেখার উপর অন্য একটি লম্ব টানলে এবং লম্বের দুপাশে অবস্থিত ভূমি সংলগ্ন কোণ দুটি সমান হলে, প্রতিটি কোণকে সমকোণ বলে। এক সমকোণ=90

স্থূলকোণ (Obtuse angle) : এক সমকোণ অপেক্ষা বড় বিন্তু দুই সমকোণ অপেক্ষা ছোট কোণকে সথূলকোণ বলে।

প্রবৃদ্ধকোণ (Reflex angle) : দুই সমকোণ অপেক্ষা বড় কিন্তু চার সমকোণ অপেক্ষা ছোট কোণকে প্রবদ্ধ কোণ বলে। অর্থাৎ 360° > x 180° হলে x একটি প্রবৃদ্ধ কোণ।

সরলকোণ (Straight angle) : দুটি সরল রেখাপরস্পর সম্পর্ণ বিপরীত দিকে গমন করলে রেখাটির দুপাশে যে কোণ উৎপন্ন হয় তাকে সরলকোণ বলে। সরলকোণ দুই সমকোণের সমান বা 180°

বিপ্রতীপকোণ (Vertically Opposite angle) : দুটি সরল রেখা পরস্পর ছেদ করলে যে চারটি কোণ উৎপন্ন হয় এদের যেকোণ একটিকে তার বিপরীত কোণের বিপ্রতীপ কোণ বলে।

সম্পূরককোণ(Supplementary angle) : দুটি কোণের সমষ্টি 180° বা দুইসমকোণ হলে একটিকে অপরটির সম্পূরক কোণ বলে।

পূরককোণ (Complementary angle) : দুটি কোণের সমষ্টি এক সমকোণ বা 90° হলেএকটিকেঅপরটির পূরক কোণ বলে।

একাস্তরকোণ: দুটি সমান্তরাল রেখাকে অপর একটি রেখা তির্যকভাবে ছেদ করলে ছেদক রেখার বিপরীত পাশে সমান্তরাল রেখা যে কোণ উৎপন্ন করে তাকে একান্তর কোণ বলে। একান্তর কোণগুলো পরস্পর সমান হয়।

অনুরূপকোণ: দুটি সমান্তরাল সরল রেখাকে অপর একটি সরল রেখা ছেদ করলে ছেদকের একই পাশে যে কোণ উৎপন্ন হয় তকে অনুরূপ কোণ বলে। অনুরূপ কোণগুলো পরস্পর সমান হয়।

সন্নিহিতকোণ: যদি দুটি কোণের একটি সাধারণ বাহু থাকে তবে একটি কোণের অপর কোণের সন্নিহিত কোণ বলে।

ত্রিভূজ (Triangle): তিনটি সরলরেখা দ্বারা সীমাবদ্ধ ক্ষেত্রকে ত্রিভূজ বলে।

সুক্ষ্মকোণীত্রিভূজ (Acute angle triangle ) : যে ত্রিভূজের তিনটি কোণই এক সমকোণ(90°) এর ছোট তাকে সূক্ষ্মকোণী ত্রিভূজ বলে।

সুক্ষ্মকোণীত্রিভূজ (Obtuse angled triangle) : যে ত্রিভূজের একটি কোণ সথূলকোণ বা এক সমকোণ অপেক্ষা বড় তাকে সথূলকোণী ত্রিভূজ বলে। কোণ ত্রিভূজের একের অধিক সথূলকোণ থাকতে পারে না।

সমকোণী ত্রিভূজ (Right angled triangle) : যে ত্রিভূজের একটি কোণ সমকোণ তাকে সমকোণী ত্রিভূজ বলে। কোন ত্রিভূজে একটির অধিক সমকোণ থাকতে পারে না। সমকোণী ত্রিভূজের সমকোণের বিপরীত বাহুকে অতিভূজ এবং সমকোণ সংলগ্ন বাহুদ্বয়ের একটিকে ভূমি এবং অপরটিকে লম্ব বলা হয়।

লম্বকেন্দ্র : ত্রিভুজের তিনটি শীর্ষ থেকে বিপরীত বাহুগুলির উপর তিনটি লম্ব সমবিন্দুগামী, এবং বিন্দুটির নাম লম্বকেন্দ্র(orthocenter)

পরিবৃত্ত: তিনটি শীর্ষবিন্দু যোগ করে যেমন একটিমাত্র ত্রিভুজ হয় তেমনি তিনটি বিন্দু (শীর্ষ)গামী বৃত্তও একটিই, এর নাম পরিবৃত্ত।

পরিকেন্দ্র: পরিবৃত্তের কেন্দ্র (যে বিন্দু ত্রিভুজের শীর্ষত্রয় থেকে সমদূরত্বে স্থিত)।

চতুর্ভুজ: চারটি রেখাংশ দিয়ে সীমাবদ্ধ সরলরৈখিক ক্ষেত্রের সীমারেখাকে চতুর্ভুজ বলে।

বিকল্প সংজ্ঞা: চারটি রেখাংশ দিয়ে আবদ্ধ চিত্রকে চতুর্ভুজ বলে।চিত্রে কখগঘ একটি চতুর্ভুজ।

কর্ণঃ চতুর্ভুজের বিপরীত শীর্ষ বিন্দুগুলোর দিয়ে তৈরি রেখাংশকে কর্ণ বলে। চতুর্ভুজের কর্ণদ্বয়ের সমষ্টি তার পরিসীমার চেয়ে কম।

চতুর্ভুজের বৈশিষ্ট্যঃ চারটি বাহু, চারটি কোন, অন্তর্বর্তী চারটি কোনের সমষ্টি ৩৬০°।

সামান্তরিক: যে চতুর্ভুজের বিপরীত বাহুগুলো সমান ও সমান্তরাল এবং বিপরীত কোণগুলো সমান (কিন্তু কোণ গুলো সমকোন নয়), তাকে সামান্তরিক বলে।

আয়ত: যে চতুর্ভুজের বিপরীত বাহুগুলো সমান ও সমান্তরাল এবং প্রতিটি কোণ সমকোণ, তাকে আয়ত বলে।

বর্গক্ষেত্র: বর্গক্ষেত্র বলতে ৪টি সমান বাহু বা ভূজ বিশিষ্ট বহুভূজ, তথা চতুর্ভূজকে বোঝায়, যার প্রত্যেকটি অন্তঃস্থ কোণ এক সমকোণ বা নব্বই ডিগ্রীর সমান।

রম্বসঃ রম্বস এক ধরনের সামান্তরিক যার সবগুলি বাহু সমান কিন্তু কোণ গুলো সমকোন নয়।

ট্রাপিজিয়ামঃ যে চতুর্ভুজ এর দুইটি বাহু সমান্তরাল কিন্তু অসমান।

বহুভুজ

(কারনঃ সরলরেখা দ্বারা সীমাবদ্ধ) বহুভুজ নয়

(কারনঃ বক্র রেখা দ্বারা সীমাবদ্ধ) বহুভুজ নয়

(কারনঃ সীমাবদ্ধ নয়)

যদি বহুভুজের সবগুলি বাহু ও কোণ সমান হয়, তবে সেটিকে সুষম বহুভুজ বলে।

বিপ্রতীপ কোণঃ কোন কোণের বাহুদ্বয়ের বিপরীত রশ্মি যে কোণ তৈরি করে, তা ঐ কোণের বিপ্রতীপ কোণ বলে ।

গোলকঃ দুইটি পরস্পর বিপরীত রশ্মি তাদের সাধারণ প্রান্ত বিন্দুতে যে কোণ উৎপন্ন করে, তাকে সরল কোণ বলে ।

প্রবৃদ্ধকোণঃ দুই সমকোণ থেকে বড় কিন্তু চার সমকোণ থেকে ছোট কোণকে প্রবৃদ্ধকোণ বলে ।

তাদেরকে সমান্তরাল সরল রেখা বলে ।

ছেদকঃ যে সরলরেখা দুই বা ততোধিক সরলরেখাকে ছেদ করে, তাকে ছেদক বলে ।

অন্তঃকেন্দ্রঃ ত্রিভুজের কোণত্রয়ের সমদ্বিখন্ডকগুলো সমবিন্দু ।ত্রই বিন্দু ত্রিভুজের অন্তঃকেন্দ্র।

পরিকেন্দ্রঃ ত্রিভুজের বাহুত্রয়ের লম্বদ্বিখন্ডকত্রয় সমবিন্দু। ত্রই বিন্দু ত্রিভুজের পরিকেন্দ্র।

ভরকেন্দ্রঃ ত্রিভুজের কোণ একটি শীর্ষবিন্দু এবং তার বিপরীত বাহুর মধ্যবিন্দুর সংযোজক সরলরেখাকে মধ্যমা বলে। ত্রিভুজের মধ্যমাত্রয় সমবিন্দু । ত্রই বিন্দু ত্রিভুজের ভরকেন্দ্র।

লম্ববিন্দুঃ ত্রিভুজের শীর্ষত্রয় হতে বিপরীত বাহুর উপর অঙ্কিত লম্বত্রয় সমবিন্দু। ত্রই বিন্দু ত্রিভুজের লম্ববিন্দু।

সর্বসমঃ দুইটি ক্ষেত্র সর্বসম হবে যদি একটি ক্ষেত্র অন্যটির সাথে সর্বতোভাবে মিলে যায় । সর্বসম বলতে আকার ও আকৃতি সমান বুঝায় ।

বর্গঃ আয়তক্ষেত্রের দুটি সন্নিহিত বাহু সমান হলে তাকে বর্গ বলে ।

স্পর্শকঃ একটি বৃত্ত ও একটি সরলরেখার যদি একটি ও কেবল ছেদবিন্দু থাকে তবে রেখাটিকে বৃত্তটির একটি স্পর্শক বলা হয় ।

সাধারণ স্পর্শকঃ একটি সরলরেখার যদি দুইটি বৃত্তের স্পর্শক হয়, তবে বৃত্ত দুইটির একটি সাধারণ স্পর্শক বলা হয় ।

আয়তিক ঘনবস্তুঃ তিন জোড়া সমান্তরাল আয়তাকার সমতল বা পৃষ্ট দ্বারা আবদ্ধ ঘনবস্তুকে আয়তিক ঘনবস্তু বলে ।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top